শিরোনাম :
ধামইরহাট বড়থা ডি আই ফাজিল মাদ্রাসার বেহাল অবস্থা নওগাঁয় ডিবি পুলিশের অভিযানে ১০১ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২ ধামইরহাটে অপহরণ মামলার আসামি ইয়াদুল পুলিশের হাতে আটক ধামইরহাটে অর্ধ বার্ষিকী সাফল্য উদযাপন ও যুব সমাবেশ অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে যুব সংগঠন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত নওগাঁর পত্নীতলায় তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৫ বগুড়ায় রেলের দূরত্ব ভিত্তিক রেয়াত বাতিলের প্রতিবাদে মানববন্ধন চাঁদপুর জেলায় ফরিদগঞ্জ উপজেলায় খাজে আহমেদ মজুমদার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত ধামইরহাটে গ্রামের তরুণদের উদ্যোগে মসজিদের ধান কাটা চলছে নওগাঁয় মাদকসহ র‌্যাবের হাতে আটক ১

পটুয়াখালী-৪ আসনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি হিসেবে মো:মাহবুবুর রহমান জনগনের আশার আলো।

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৫ আগস্ট, ২০২৩
  • ১১১ বার পঠিত

মো: ইলিয়াস শেখ বিশেষ প্রতিনিধি:-

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মাদার্স অফ হিউম্যানিটি জননেত্রী শেখ হাসিনার সুচিন্তিত, সুদৃঢ়, দূরদৃষ্টিসম্পন্ন চেতনায় এবং প্রত্যেকটি পদক্ষেপের জন্য এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অকল্পনীয় উন্নয়ন হয়েছে । সবার জন্য শিক্ষা নিশ্চিত করণে এবং শিক্ষার গুণগত মান রক্ষার্থে একই সাথে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের অনেকগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হয়েছে, জননেত্রী শেখ হাসিনার এহেন কার্য্যে প্রগতিশীল চেতনায় দেশের অগ্রযাত্রার শুভসূচনায় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের জন্যই হয়েছে অগ্রগতি যা জননেত্রী শেখ হাসিনাই পেরেছেন বাংলার গণ মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণে চুড়ান্ত পদ দেখাতে, যা অব্যাহত রাখতে সকল স্তরে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা সুনিশ্চিত করা প্রয়োজন বলে মনে করেছেন তাই বঙ্গবন্ধু কণ্যা বিচার বিভাগের প্রতি আলাদা দৃস্টি রেখে সংস্কার করেছেন। এদেশের সাধারণ মানুষ, শিক্ষক সহ সকল পেশার মানুষ জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশে আছে। মাননীয় নেত্রী, মানবতার মা জনগণের এটাই প্রত্যাশা দক্ষিণ অঞ্চলের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকুক। জননেত্রী শেখ হাসিনাই পেরেছেন জনগনের প্রত্যাশা পুরণে বাংলার মানুষকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা উপহার দিতে। বাকী জীবনে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবেন যা হবে বিশ্বের কাছে মাইলফলক। উন্নয়নের মহাকবি জননেত্রী শেখ হাসিনার ভালোবাসায় পটুয়াখালী-৪ আসনের সর্বস্তরের জনগণ মুগ্ধ। জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজস্ব মেধা ও মননের মাধ্যমে দক্ষিণ অঞ্চলে যে পরিমাণ উন্নয়ন করেছেন তার প্রতি শুধু কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করলে কম হবে। দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষ চিরকাল ঋণী।

পটুয়াখালী-৪ আসনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক মনোনীত ও তাঁর নিজ হাতে গড়া বিশ্বস্ত সৈনিক সাবেক প্রতিমন্ত্রী জননেতা মো. মাহবুবুর রহমান তালুকদার । তাঁর পিতা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা মৃত এ কে এম ইসমাইল তালুকদার। সাবেক প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুবুর রহমান একজন রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য। তাঁর পিতা কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ এর প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ১৯৪৯ সাল থেকে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়, স্বাধীনতা বিরোধী চক্রকে নির্মূল করতে স্বক্ষম হন এর ফলে বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসা ও আস্থা অর্জন করে ১৯৭২ সাল থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

জনাব মোঃ মাহাবুবুর রহমান ছাত্র জীবনে ১৯৭৩ সাল থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত কলাপাড়া উপজেলা ছাত্র লীগের সভাপতি ছিলেন। এরপর জাতীয় পার্টির সন্ত্রাসী তান্ডবে ও আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক চরম দুর্দিনে ১৯৮৮ সালে তিনি কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং রাজনৈতিক অনেক সংকটময় অবস্থা মোকাবেলা করে ২০০২ সাল পর্যন্ত এপদে বহাল থেকে দলের হাল ধরেন। তিনি জামায়াত বিএনপির সকল দেশবিরোধী আন্দোলন সংগ্রাম মোকাবেলা করে, রাজনৈতিক জনপ্রিয়তা অর্জন করার মধ্যদিয়ে ২০০৩ সাল থেকে অদ্য পর্যন্ত তিনি কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আসিন রয়েছেন।
সাবেক এ প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন।

সুদীর্ঘ প্রায় ৬৫ বছর যাবৎ আলহাজ্ব মো. মাহবুবুর রহমান ও তাঁর পিতা পর্যায়ক্রমে কলাপাড়া উপজেলা অওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গৌরবময় ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মো. মাহবুবুর রহমান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তিনি দেশ ও জাতির কল্যাণে রাতদিন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি সকল প্রকার ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে পরপর ৩ বার ১১৪ পটুয়াখালী -৪ আসন হতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। প্রথম বার ২০০১ সালের ৮ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি ও জামাতের সীমাহীণ সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের মধ্যে দিয়ে প্রাণ বাজি রেখে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেন। (২০০১ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মাত্র ৫৯ টি আসন পেয়েছিল এর মধ্যে পটুয়াখালী-৪ ছিল অন্যতম ), তিনি ১/১১ সময় জামাত বিএনপির নির্যাতন নিপীড়ন উপেক্ষা করে দ্বিতীয় বার ২০০৮ সালের ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেন। জামাত বিএনপির শাসনামলে একমাত্র মাহবুবুর রহমান ছাড়া পটুয়াখালী-৪ আসনে অন্য কোন নেতা আওয়ামীনলীগের হাল ধরার মত সাহস করেনি এবং তৃতীয় বার ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এখন দলের সুদিনে একটি নেতৃত্বহীন মহল বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সফল প্রতিমন্ত্রী মো,. মাহবুবুর রহমানকে মিথ্যে ষড়যন্ত্রে অভিযুক্ত করতে চায় যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অবগত রয়েছেন। কলাপাড়া ও রাঙ্গাবালী উপজেলার জনগণও অবগত আছে।

মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ৩১ জুলাই ২০০৯ খ্রিঃ তারিখ বঙ্গভবনে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে জনাব মাহাবুবুর রহমান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী পদে অত্যন্ত ন্যায় পরায়ন ও সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি প্রতিমন্ত্রী থাকা কালীন জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাঁর রাজনৈতিক দূরদর্শীতা ও দক্ষ কর্মদক্ষতায় দক্ষিণ অঞ্চলের অসংখ্য উন্নয়ন করে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ উদাহরণ সৃষ্টি করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দক্ষিণ অঞ্চলে যে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে যার ফলশ্রুতিতে আওয়ামীলীগের পক্ষে সাবেক বার বার নির্বাচিত এমপি মো মাহবুবুর রহমান সর্বোচ্চ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com