শিরোনাম :
ধামইরহাট বড়থা ডি আই ফাজিল মাদ্রাসার বেহাল অবস্থা নওগাঁয় ডিবি পুলিশের অভিযানে ১০১ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২ ধামইরহাটে অপহরণ মামলার আসামি ইয়াদুল পুলিশের হাতে আটক ধামইরহাটে অর্ধ বার্ষিকী সাফল্য উদযাপন ও যুব সমাবেশ অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে যুব সংগঠন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত নওগাঁর পত্নীতলায় তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৫ বগুড়ায় রেলের দূরত্ব ভিত্তিক রেয়াত বাতিলের প্রতিবাদে মানববন্ধন চাঁদপুর জেলায় ফরিদগঞ্জ উপজেলায় খাজে আহমেদ মজুমদার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত ধামইরহাটে গ্রামের তরুণদের উদ্যোগে মসজিদের ধান কাটা চলছে নওগাঁয় মাদকসহ র‌্যাবের হাতে আটক ১

বাড়ির করার জমি কিনতে গিয়ে প্রতারনার শিকার হয়েছেন সাহেরা খাতুন।

আব্দুল কাইয়ুম পাটোয়ারী কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি।
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১১ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫৬৫ বার পঠিত

কুমিল্লা জেলা মুরাদনগর উপজেলার ১৪ নং পৃর্ব নবীপুর ইউনিয়ন বাখরনগর গ্রামের মোঃ আব্দুল মান্নান মিয়া স্ত্রী সাহেরা খাতুন (৫০)বাড়ী করার জমি কিনতে গিয়ে দুই প্রতারকের হাতে প্রতারিত হয়েছেন বলে জানা গেছে।কিছু মাস দরে নিজের থাকার বাসস্থান বাড়ি করার জমি কিনতে বিভিন্ন মানুষের দারস্থ হন সাহেরা খাতুন। সেই সুযোগকে পুজি করে গুন্জর গ্রামের মোঃ তজুমিয়া (৫৫)ও মোঃ মফিজ মিয়া (৫০)দুই জন ব্যক্তি সাহেরা খাতুন এর বাড়িতে গিয়ে একটি বরাট জমি বিক্রি করার প্রস্তাব করে। সেই কথা শুনে সাহেরা খাতুন তার ছেলে মো মফিজ মিয়া কে সাথে নিয়ে গুন্জর উওর পাড়া একটি ভরাট জমি দেখতে যান।

ভরাট জমি দেখে সাহেরা খাতুন আগ্রহ প্রকাশ করলে।প্রতারক মোঃ তজুমিয়া ও মোঃ মফিজ মিয়া সুযোগ বুঝতে পেরে ১৩ শতক জমি ৯ লক্ষ টাকা দরদাম ঠিক করেন। বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার প্রলোভন পেয়ে সহজ সরল সাহেরা খাতুন তিন শতক বসত বিটে বাড়ি বিক্রি কর পাঁচ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা যোগার করেন। উপস্থিত সাক্ষী মোঃ আরিফ মোঃ মফিজ মিয়া মোঃ জুলহাজ মোঃ আব্দুল কাইয়ুম পাটোয়ারী মোঃ ফুলমিয়াকে সামনে রেখে ১১/৮/২০২০ তারিখে পাচঁ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা মোঃ তজুমিয়ার হাতে বুঝিয়ে দেন। ৫ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা বুঝিয়া পাইয়া।

মোঃ তজুমিয়া তিনশত টাকার স্টাম্পে লিখিত একটি বায়না নামা দলিলে সাক্ষর করেন। সাহেরা খাতুন এর বসত বিটা বাড়ি বিক্রি করা মালিক বাড়ি খালি করতে চাপ দিতে থাকলে।সাহেরা খাতুন দারদেনা করে বাকী ৩ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা যোগাড় করেন। উপস্থিত সাক্ষী মোঃ আরিফ মোঃ আব্দুল কাইয়ুম পাটোয়ারী কে সামনে রেখে। ১১/৯/২০২০ তারিখ সকাল ১১ ঘটিকায় সাহেরা খাতুন মোঃ মফিজ মিয়া মোঃ তজুমিয়া কে ৩ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা বুঝিয়ে দেন। কিছু দিন পরে দলিল চাইতে গেলে মোঃ তজুমিয়া দলিল দেম দিচ্ছ করতে থাকে। নিরুপায় হয়ে সাহেরা খাতুন গুন্জর গ্রামে একটি সালিশ ডাকায় সেই সালিশে মোঃ তজুমিয়া ও মোঃ মফিজ মিয়া কোন টাকা পায়নি বলে অস্বীকার করে।

মুরাদনগর উপজেলার ভুবনঘর গ্রামের মোঃ ইব্রাহিম নামে যুবলীগ নেতা কিছু দলীয় কেড্রার নিয়ে সালিসে উপস্থিত হন। পরে বিভিন্ন উস্কানিমূলক কথা বলে সালিশ ছত্রবংঙ্গ করে দেয়। অন্য দিকে এই ১৩ শতক জমি নিজের ড্রেজার দিয়ে বরাট করেছেন মোঃ মফিজ মিয়া।এই দুই জন প্রতারক একই জমি বিভিন্ন জায়গায় সহজ সরল মানুষের কাছে বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। তাদের প্রতারনার মুল রহিস্যে হলো টাকা হাতে নেয় মোঃ মফিজ মিয়া কিন্তু বায়না নামা দলিল সাক্ষর করে মোঃ তজুমিয়া পরে দলিল চাইতে গেলে প্রতারক মোঃ তজুমিয়া বলে টাকা আমি নেইনি টাকা নিয়েছে মোঃমফিজ মিয়া।

মোঃ মফিজ মিয়ার কাছে দলিল চাইলে বলে টাকা আমি নেইনি টাকা নিয়ে মোঃ তজুমিয়া। অন্য দিকে মুরাদনগর উপজেলার ভুবনঘর গ্রামের মোঃ ইব্রাহিম নামে এক যুবলীগ পরিচয় দানকারী নেতা সাহেরা খাতুন বিভিন্ন রকম বয়বীতি দেখাচ্ছে। ভরাট জমি দলিল চাইলে জানে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে আসচ্ছে ।যদি থানায় মামলা করতে যায়। থানার সামনে থেকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে গুলি করে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিয়ে আসচ্ছে। মোঃ ইব্রাহিম নামে এই যুবক মোঃতজুমিয়া ও মোঃ মফিজ মিয়াকে অবৈধ ড্রেজার ব্যাবসা করার শেল্টার দিয়ে আসচ্ছে বলে জানা যায়। অসহায় সাহেরা খাতুন মামলা করতে থানায় যেতে ভয়পাচ্ছে বলে জানিয়েছে। অসহায় সাহেরা খাতুন পরিবার সকল কে নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com